ধন্যবাদ সিংগাপুর সরকারকে!

ধন্যবাদ সিংগাপুর সরকারকে! গত পরশু দিন কাজ শেষ যখন রুমে যাই তখন আমা’র রুমমেট আমাকে বলে যে একজন লোক আমাকে রুমে এসে খুঁজে গেছে, কিন্তু সে বলতে পারেনা কে সেই লোক, আমি মনে করলাম যে হয়তো আমা’র কোন পরিচিত লোক হবে। তো বেশি কিছু চিন্তা না করে রাতের খাবার শেষ করে বাড়িতে কথা বলে শুয়ে পরলাম। সকালে যথারীতি মতো কাজে চলে আসলাম।সারাদিন কাজ শেষে রুমে চলে গেলাম।শরীরটা একটু দূর্বল লাগছিলো তাই বিছানায় শরীরটা হেলান দিয়ে বাড়িতে কথা বলছিলাম।

এমন সময় আমাকে কেউ একজন ডেকে বললো শফিক ভাই আপনাকে দুইজন লোক খুজতে এসেছে। আমি সাথে সাথে বিছানা ছেড়ে দিয়ে হলরুমে আসলাম, এসেই দেখি দুইজন সিংগাপুরিয়ান কোন দরজায় দাড়িয়ে আছে। আমি সামনে আসতেই তারা আমাকে জিজ্ঞেস করলো,, Hi islam how are you today? we are From MOM, আমি একটু ভয় পেয়ে গেলাম। কি ব্যাপার MOM কেন আমাকে খুজতে রুমে চলে আসলো।আমি তো কোন অ’পরাধ করিনি। তখন তারা আবার কথা বলতে শুরু করলো, don’t worry bro we come here to know about you and your family,

আমা’র ভয়টা একটু কে’টে গেল। আমি তাদের সাথে কথা বলা শুরু করলাম। Hi bro I’m Shafiqul Islam,,, Thanks for you are here,, এর মধ্যে একজন মুসলিম ছিলো তাই আমাকে ছালাম দিয়ে আমা’র শরীর কেমন আছে আমা’র পরিবারের সবাই কেমন আছে সব জানতে চাইলো। তারা আমা’র কাছে থেকে আরো জানতে চাইলো যে আমি কি এখন দেশে যেতে চাই কি না। আমি আমা’র মতো করে তাদের সাথে কথা বলতেছিলাম। অনেক বিনয়ের সাথে তারা আমা’র সাথে কথা বলতেছিলো।

আমাকে বললো যে কোন সমস্যা হলে আপনি আমা’দেরকে কল দিবেন।আমর’া আপনার পাশে আছি। কথাগু’লো শুনে মনটা ভালো হয়ে গেল। আমি একজন প্রবাসী। তাদের কাছে আমর’া একজন সাধারন দিনমজুর। অথচ কি সুন্দর তাদের ব্যাব’হার। আমা’র মনে হলো আমি একজন প্রবাসী হয়ে আজকে আমি ধন্য। এখানে একজন দিনমজুরের ও কতো সম্মান তাদের কাছে। আর আমি একজন বাংলাদেশি নাগরিক হয়েও কখনো যদি আমি অসুস্থ হয়ে পরে থাকি তবে সরকারের তরফ থেকে একটা দারোয়ান ও আসবেনা আমা’র খোঁজ খবর নিতে।

এতো কষ্ট করে এতো পরিশ্রম করে মাস শেষে বেতনের সব টাকা দেশে পাঠিয়ে দেই।তবুও আমর’া তাদের চোখ শুধুই একজন প্রবাসী কামলা,,,মর’ে গেলে লা’শটা নিতে চায়না দেশে।
অথচ এখানে আমি অসুস্থ হওয়াতে আমা’র পিছনে আনুমানিক -২০+ লক্ষ টাকা খরচ করে ফেলেছেন। তারা লংটাইম আমাকে চিকিৎসা করার দায়িত্ব নিয়েছেন। হাসপাতালে গেলে ডাঃ আমাকে কতটা যত্ন সহকারে চিকিৎসা করে। কি সুন্দর তাদের আচরন।তাদের কথা শুনলেই সুস্থ হয়ে যাই। মন থেকে দোয়া করি সিংগাপুর সরকারের জন্য।

ধন্যবাদ সিংগাপুর সরকারকে! গত পরশু দিন কাজ শেষ যখন রুমে যাই তখন আমা’র রুমমেট আমাকে বলে যে একজন লোক আমাকে রুমে এসে খুঁজে গেছে, কিন্তু সে বলতে পারেনা কে সেই লোক, আমি মনে করলাম যে হয়তো আমা’র কোন পরিচিত লোক হবে। তো বেশি কিছু চিন্তা না করে রাতের খাবার শেষ করে বাড়িতে কথা বলে শুয়ে পরলাম। সকালে যথারীতি মতো কাজে চলে আসলাম।সারাদিন কাজ শেষে রুমে চলে গেলাম।শরীরটা একটু দূর্বল লাগছিলো তাই বিছানায় শরীরটা হেলান দিয়ে বাড়িতে কথা বলছিলাম।

এমন সময় আমাকে কেউ একজন ডেকে বললো শফিক ভাই আপনাকে দুইজন লোক খুজতে এসেছে। আমি সাথে সাথে বিছানা ছেড়ে দিয়ে হলরুমে আসলাম, এসেই দেখি দুইজন সিংগাপুরিয়ান কোন দরজায় দাড়িয়ে আছে। আমি সামনে আসতেই তারা আমাকে জিজ্ঞেস করলো,, Hi islam how are you today? we are From MOM, আমি একটু ভয় পেয়ে গেলাম। কি ব্যাপার MOM কেন আমাকে খুজতে রুমে চলে আসলো।আমি তো কোন অ’পরাধ করিনি। তখন তারা আবার কথা বলতে শুরু করলো, don’t worry bro we come here to know about you and your family,

আমা’র ভয়টা একটু কে’টে গেল। আমি তাদের সাথে কথা বলা শুরু করলাম। Hi bro I’m Shafiqul Islam,,, Thanks for you are here,, এর মধ্যে একজন মুসলিম ছিলো তাই আমাকে ছালাম দিয়ে আমা’র শরীর কেমন আছে আমা’র পরিবারের সবাই কেমন আছে সব জানতে চাইলো। তারা আমা’র কাছে থেকে আরো জানতে চাইলো যে আমি কি এখন দেশে যেতে চাই কি না। আমি আমা’র মতো করে তাদের সাথে কথা বলতেছিলাম। অনেক বিনয়ের সাথে তারা আমা’র সাথে কথা বলতেছিলো।

আমাকে বললো যে কোন সমস্যা হলে আপনি আমা’দেরকে কল দিবেন।আমর’া আপনার পাশে আছি। কথাগু’লো শুনে মনটা ভালো হয়ে গেল। আমি একজন প্রবাসী। তাদের কাছে আমর’া একজন সাধারন দিনমজুর। অথচ কি সুন্দর তাদের ব্যাব’হার। আমা’র মনে হলো আমি একজন প্রবাসী হয়ে আজকে আমি ধন্য। এখানে একজন দিনমজুরের ও কতো সম্মান তাদের কাছে। আর আমি একজন বাংলাদেশি নাগরিক হয়েও কখনো যদি আমি অসুস্থ হয়ে পরে থাকি তবে সরকারের তরফ থেকে একটা দারোয়ান ও আসবেনা আমা’র খোঁজ খবর নিতে।

এতো কষ্ট করে এতো পরিশ্রম করে মাস শেষে বেতনের সব টাকা দেশে পাঠিয়ে দেই।তবুও আমর’া তাদের চোখ শুধুই একজন প্রবাসী কামলা,,,মর’ে গেলে লা’শটা নিতে চায়না দেশে।
অথচ এখানে আমি অসুস্থ হওয়াতে আমা’র পিছনে আনুমানিক -২০+ লক্ষ টাকা খরচ করে ফেলেছেন। তারা লংটাইম আমাকে চিকিৎসা করার দায়িত্ব নিয়েছেন। হাসপাতালে গেলে ডাঃ আমাকে কতটা যত্ন সহকারে চিকিৎসা করে। কি সুন্দর তাদের আচরন।তাদের কথা শুনলেই সুস্থ হয়ে যাই। মন থেকে দোয়া করি সিংগাপুর সরকারের জন্য।