ম’লদ্বারে চু’লকানি হলে কী করবেন?

মলদ্বারের চুলকানির সমস্যায় অনেকেই ভোগেন। রাতের বেলায় মলদ্বার বেশি চুলকালে অনেকেই পাইলস হয়েছে বলে ভাবেন। মলদ্বার বিভিন্ন কারণে চুলকাতে পারে, যেমন- ’ এনালফিশার হলে ’ কৃমি হলে

’ অনেকক্ষেত্রে মলদ্বারে ছোট্ট ছিদ্র হয়ে ফিস্টুলা হয়, যেখান থেকে পুঁজ-পানি বের হয়, সেই ছিদ্রপথও অনেক ক্ষেত্রে চুলকায় ’ মলদ্বারে ফা’ঙ্গাল ইনফেকশন হলে

কাজেই কারও যদি মলদ্বারে চুলকানি থাকে, তাহলে সঠিকভাবে রোগের ইতিহাস নিতে হবে, এটা কেন হচ্ছে, এটার স’ঙ্গে অন্য কোনো উপসর্গ

আছে কি না? এক্ষেত্রে অবশ্যই রোগীকে চিকিৎসকের শরণাপন্ন ’হতে হবে। প্রটোস্কো’পি করে চিকিৎসক রোগ নির্ণয় করেন। অনেকেই দীর্ঘদিন

ধরে মাঝে মধ্যেই কৃমি ওষুধ খেয়ে থাকেন। তারা মনে করেন, মলদ্বারের চুলকানি কৃমির জন্য হচ্ছে। আসলে রোগের নাম এনালফিশার। অযথা নিজে নিজে চিকিৎসা না করে, কৃমির ওষুধ না খেয়ে অবশ্যই একজন চিকিৎসকের শরণাপন্ন ’হতে হবে। চিকিৎসক রোগ নির্ণয় করে সঠিক চিকিৎসা দিলেই এ রোগ থেকে মুক্তি মিলবে। লেখক : সহযোগী অধ্যাপক (সার্জারি), জেনারেল ও কোলোরেকটাল সার্জন, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল