প্রো’স্টেট গ্রন্থি বড় হয় কেন, কী করবেন?

প্রোস্টেট গ্রন্থির সমস্যায় অনেকেই ভুগেন। অহেতুক লাজ-ল’জ্জায় কাউকে বলেন না। এতে পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে উঠে। প্রোস্টেট পুরুষদের ইন্টারনাল অর্গানের মধ্যে গু’রুত্বর্পূণ অ’ঙ্গ।

এটি একটি সুপারির মতো মাংসপিণ্ড, যা পুরুষের মূত্রথলির নিচে মূত্রনালিকে ঘিরে থাকে। এর প্রধান কাজ শুক্রা’ণুর জন্য খাদ্যের যোগান দেওয়া।

এ বি’ষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন ডা. এস এম আব্দুল আজিজ। বৃ’দ্ধির কারণ : বয়স বৃ’দ্ধির স’ঙ্গে স’ঙ্গে দে’হের হরমোনেও কিছু কিছু পরিবর্তন হয়ে থাকে। হরমোনের এই পরিবর্তনকেই প্রোস্টেট গ্রন্থির

বৃ’দ্ধির কারণ হিসেবে গণ্য করা হয়। পঞ্চাশ ঊর্ধ্বো প্রায় সব পুরুষের প্রোস্টেট বড় ’হতে থাকে কিন্তু সবার উপসর্গ দেখা দেয় না। বৃ’দ্ধির

ফলাফল : প্রথমত, মূত্রনালির চারদিকে প্রোস্টেটের কোষ সংখ্যা বেড়ে মূত্রনালিকে চেপে ধরে। দ্বিতীয়ত, প্রোস্টেট গ্রন্থির মধ্যভাগ বৃ’দ্ধি পেয়ে মূত্রনালির বাহির পথকে আট’কে দেয়। ফলে মূত্রথলি থেকে সহজে প্রস্রাব বের ’হতে পারে না।

উপর্সগ : ঘন ঘন প্রস্রাব হওয়া, ফোঁটা ফোঁটা প্রস্রাব হওয়া, প্রস্রাব করার পরও প্রস্রাবের থলি খালি না হওয়া, প্রস্রাবের বেগ আট’কিয়ে রাখা অসম্ভব হয়, প্রস্রাবের গতি দুর্বল ও মাঝপথে বন্ধ হয়, প্রস্রাবের থলি বেশি ভরে ফোঁটা ফোঁটা প্রস্রাব হয় ও অনেক সময় প্রস্রাবের স’ঙ্গে র’ক্ত যায়।

প্রস্রাব একেবারে আট’কে যাওয়া বা আট’কানোর মতো হয়। হঠাৎ করে প্রস্রাব আট’কে গেলে তলপেটে তীব্র ব্যথা ও প্রচণ্ড প্রস্রাবের চাপ অনুভূ’ত হয়। প্রোস্টেটজনিত সমস্যাগু’লোর মধ্যে রয়েছে ঘন ঘন প্রস্রাব হওয়া বিশেষত রাতে।

চিকিৎসা : চল্লিশোর্ধ্বে পুরুষদের বছরে অন্তত একবার স্বাস্থ্য পরীক্ষার পাশাপাশি প্রোস্টেট-পরীক্ষা করানো উচিত। প্রোস্টেট গ্রন্থি বাড়লে অনেক সমস্যা ’হতে পারে। প্রোস্টেটের সমস্যাকে হালকা করে দেখা উচিত নয়। এই গ্রন্থটি বয়স বাড়ার স’ঙ্গে স’ঙ্গে বেড়ে যায়। এই বৃ’দ্ধি কারও কারও ক্ষেত্রে অসুবিধা সৃষ্টি করে এবং কারও কারও ক্ষেত্রে কোনো অসুবিধা সৃষ্টি করে না বা সামান্য অসুবিধা সৃষ্টি করে।

ক্ষেত্রবিশেষ প্রোস্টেট বৃ’দ্ধিজনিত উপসর্গগু’লো মেডিসিন প্রয়োগের মাধ্যমে উপশম লাভ করা যায়। ওষুধ প্রোস্টেটের মাংশপেশিগু’লো শিথিল করে প্রস্রাবের বাধা দূর করে।