free hit counter

যে ৪ বদ অ’ভ্যাসে টাকা কখনোই আপনার হাতে থাকবে না!

আয় অনেক ভালো, তারপরও মাস পার না ’হতেই টাকা ধার চাইতে বাধ্য হয় অনেকে। কোথাও এমন পরিস্থিতি যাতে আপনার স’ঙ্গে ঘটতে না হয়; সেজন্য কিছু বড় ভুলের কথা বলবো আজ।

এস কারণেই মানুষের হাতে টাকা থাকে না। অহেতুক কেনাকা’টা মানুষ তাদের প্রয়োজনীয় জিনিস কিনতে এটা স্বাভাবিক। কিন্তু অনেক লোক

আছে যাদের কেনার দরকার নেই, তবুও তারা প্রতি স’প্তাহে বা প্রতি মাসে কেনাকা’টা করতে যায়। তাই বেশিরভাগ জিনিসই তাদের কোনো

কাজে আসে না, এতে তাদের কেবল অর্থের অ’পচয় হয়। এমনকি আপনি যদি এই ধরনের কেনাকা’টায় আসক্ত হন, তবে সময়মতো এটি পরিবর্তন করা আপনার জন্য উপকারী।

প্রতিদিন পার্টি করা-মাঝে মাঝে বিশেষ অনুষ্ঠানে বন্ধুদের স’ঙ্গে পার্টি করতে ক্ষ’তি নেই। কিন্তু এই পার্টি করা যদি নিত্যদিনের ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়, তাহলে তা মা’রাত্মক সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। আপনার এই ভুল শখের কারণে, আপনি প্রতিবার ৫০০/১০০০ টাকা হারান। আপনি যদি মাসে ১৫ দিনও এমন পার্টি করেন, সেই ১৫ হাজার টাকায় আপনি আপনার পরিবারের জন্য কতটা করতে পারবেন ভেবে দেখু’ন!

উপার্জনের চেয়ে বেশি ব্যয়-অনেকে উপার্জনের চেয়ে বেশি ব্যয় করে। এরপর অন্যের কাছ থেকে ঋণ চাওয়ার জন্য হাত বাড়িয়ে দেয়। যে সব বাড়িতে এমন অভ্যাস আছে, তারা জীবনে কখনও উন্নতি করতে পারে না এবং সবসময় আর্থিক সীমাব’দ্ধতার সম্মুখীন হয়। অতএব, আপনি যদি জীবনে সুখ চান, তবে আপনার উপার্জন অনুসারে ব্যয় করার অভ্যাস করুন।

নিরর্থক ভান করা-আমা’দের চারপাশে এমন অনেক মানুষ থাকবে যারা চেহারায় অনেক বেশি বিশ্বা’সী। বন্ধু-বান্ধব ও আ’ত্মীয়-স্বজনদের মুগ্ধ করার জন্য তারা একাধিক দামী জিনিস কেনে। এই ধরনের লোকেরা দরকষাকষি এবং গু’ণমান পরীক্ষায় খুব বেশি বিশ্বা’স করে না। তারা বিশ্বা’স করেন যে এটি যদি ব্যয়বহুল হয় তবে এটি ভালো। এই ধরনের লোকেরা যদি মাসে ২-৩ বারও এই ধরনের কেনাকা’টা করে, তবে তারা সেখানে দেউলিয়া হয়ে যায়!