free hit counter

পু’রুষের সৌ’ন্দর্যচর্চার কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

অনিয়ন্ত্রিত ও এলোমেলো জীবনযাপন, অতিরিক্ত ভাজা পোড়া খাওয়া, পর্যা’প্ত না ঘু’মানো, বেশি সিগারেট খাওয়া-এই সব অভ্যাস থাকলে পুরুষের সৌন্দর্য নষ্ট হয়। ত্বকের সৌন্দর্য ধরে

রাখার জন্য পুরুষকে কিছু নিয়ম মেনে চলা উচিত: >> মৌসুমী ফলমূল ও শাকসবজি খেলে ব্রণ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। ব্রণ প্রতিরোধে ত্বক

পরিস্কার রাখা, খোঁচাখুঁচি না করা, প্রচুর পানি পান করা, কোষ্টকাঠিন্য যেন না হয় তাই নরম খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে পারেন। >> এছাড়া ব্রণ প্রতিরোধে চা কম খাবেন এবং গভীর রাত

পর্যন্ত জাগবেন না। আর যাদের ব্রণ বেশি তারা প্রতিদিন শেভ না করে একদিন পরপর শেভ করার অভ্যাস করতে পারেন। শেভ করার পাঁচ-

দশ মিনিট আগে কোনো ভালো ময়েশ্চারাইজার লাগানো যেতে পারে। শেভের আগে রেজারটি অ্যান্টিসেপটিক দিয়ে উষ্ণ গরম পানিতে কিছুক্ষণ ডুবিয়ে রাখা প্রয়োজন। শেভিংয়ের সময় রেজার নিচের দিকে টানতে হবে। কোনোভাবেই উল্টা টানা যাব’ে না। এতে ত্বকের চামড়ার ভীষণ ক্ষ’তি হয়। অনেক পুরুষের ত্বকে শেভ করার পর ত্বকে র‌্যাশ হয়। সেজন্য হালকা কোনো শেভিং ক্রিম বা ফোম ব্যবহার করুন। লক্ষ্য রাখতে হবে র‌্যাশ হওয়ার প্রবণতা যাদের রয়েছে, তাদের আফটার শেভ লোশন এড়িয়ে চলা ভালো।

>> বাইরে যাওয়ার অন্তত ১৫ মিনিট আগে সানস্ক্রিন লোশন বা ক্রিম ব্যবহার করুন ত্বকে। আমা’দের দেশের আবহাওয়ায় সানস্ক্রিন লোশন বা ক্রিমের এসপিএফ ৪০-৫০ ব্যবহার দরকার। প্রতিদিনের ব্যবহার্য প্রডাক্ট যেন অতি বেগু’নী রশ্মি প্রতিরোধক হয়, সেদিকে খেয়াল রাখু’ন।

>>ঘু’মের আগে ভালো মানের ফেসওয়াস দিয়ে মুখ ধুয়ে চিকিৎসকের পরামর’্শে স্ক্রিন টোনার বা ব্যবহার্য প্রডাক্ট লাগাতে পারেন। ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম দিতে পারেন ঘু’মের আগে। এছাড়া দেখা গেছে ফলের রস ত্বক কোমল করার স’ঙ্গে স’ঙ্গে রোদে পোড়া ভাব দূর করে। ঘরে বসে যত্নের পাশাপাশি ত্বকের ধরন বুঝে মেডিকেল সেন্টারে কেমিকেল পিলিং, পিআরপি, ফেস পিআরপি, ও বিভিন্ন ডার্মাটো চিকিৎসা আপনার ত্বককে আরো সুন্দর ও লাবণ্যময় করে তুলতে পারে।