free hit counter

শেভিং ভালো নাকি ও’য়্যাক্সিং?

অবাঞ্ছিত লোম দূর করার জন্য রেজার ব্যবহার করবেন নাকি ওয়্যাক্স করবেন? শেভিং অবশ্য ওয়্যাক্সিংয়ের চাইতে কম কষ্টকর। শেভ করলে

ব্যথা লাগে না মোটেই। তবে রূপ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ওয়্যাক্স দীর্ঘমেয়াদি সুবিধা দেবে আপনাকে। জেনে নিন ওয়্যাক্সিং বেছে নেওয়ার কিছু কারণ সম্পর্কে-

মধু, চিনি ও লেবুর সাহায্যে ওয়্যাক্সিং করা হয়। এসব উপকরণ ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। ওয়্যাক্সিং প্রায় স’প্তাহখানেক আপনার ত্বক কোমল

রাখবে। কিন্তু শেভ করলে দুই দিন পরই নতুন লোম জেগে উঠবে ত্বকে। ব্যস্ততার মাঝে নিয়মিত শেভিংয়ের সময় বের করাও বেশ কষ্টকর।
ওয়্যাক্সিং যেমন তাড়াতাড়ি হয়, তেমনি ত্বক কে’টে যাওয়ার ভয় থাকে না।

শেভ করলে কেবল ত্বকের উপরিভাগ থেকে দূর হয় লোম। কিন্তু ওয়্যাক্সিংয়ের ফলে লোম দূর হয় ভেতর থেকে। এতে ত্বকে জমে থাকা ময়লা ও মর’া কোষও দূর করা সম্ভব হয়। নিয়মিত ওয়্যাক্স করলে অবাঞ্ছিত লোমের বৃ’দ্ধি ধীরে ধীরে কমে আসে।