অধিকাংশ না’রীই স্বা’মীর কাছে গো’পন করেন যে পাঁচ কথা

জীবনে বেশ কিছু বি’ষয়ে গো’পনীয়তা বজায় রাখেন অনেকে। কিছু ক্ষেত্রে তা ইচ্ছাকৃত। কিছু আবার অস্বস্তি এড়াতে নিজের সম্পর্কে বেশ কিছু তথ্য গো’পন করে যান নারীরা। এমনকি স্বামীর কাছেও মুখ

ফুটে বলতে পারেন না সে কথা। বিয়ের পরও কমবেশি সব নারীই এমন কিছু পরিস্থিতির মুখোমুখি হন। নিজের পছন্দ করা মানুষের স’ঙ্গে বিয়ে

হোক কিংবা পারিবারিক ভাবে বিয়ে হোক, বিয়ের পর অন্য পরিবেশ ও চারপাশের মানুষগু’লো হঠাৎ বদলে যাওয়ায় সাধারণত নারীরা দিন কয়েক গু’টিয়েই থাকেন। এই সময়ে বেশ কিছু বি’ষয়

গো’পন করে যাওয়ার প্রবৃত্তি তৈরি হয় তাদের মনে। কোন কোন কথা অধিকাংশ নারীরা বিয়ের পর সে ভাবে বলে উঠতে পারেন না, জানেন?

>>> অনেক মেয়েই অতীতের সম্পর্কের কথা স্বামীর কাছে গো’পন করে যান। তাদের মনে হয় স’ঙ্গীর কাছে সবটা বললে তার মনে সন্দে’হ বাসা বাঁধতে পারে। তাই পুরনো প্রেম নিয়ে সব কথা মন খুলে বলার মতো সাহস বা সুযোগ মেয়েরা সব সময়ে পান না।

>>> নতুন বিয়ের পর অনেক মেয়েকেই শ্বশুরবাড়িতে নানা অ’প্রীতিকর পরিস্থিতির মুখোমুখি ’হতে হয়। কোনো আ’ত্মীয়ের ব্যবহার বা কথায় আঘা’ত পেতে পারেন। প্রথম দিকে স্বামীর কাছ থেকে সেই সব কথা গো’পন করেন বহু মেয়ে।

>>> শারীরিক নানা সমস্যা অনেকেরই থাকে। বিয়ের পর তা নিয়েও খুব একটা সহজ ’হতে পারেন না অনেক মেয়ে। বরং এ নিয়ে তারা অস্বস্তিতে ভোগেন। মেয়েদের এই স্বভাবের কারণেই অনেক সময়ে জটিল রোগে আ’ক্রা’ন্ত হলেও তা দেরিতে ধ’রা পড়ে।

>>> বাপের বাড়ির কোনো গু’রুতর সমস্যা বা আর্থিক টানাপড়েনের খবর কানে এলেও মেয়েরা সে বি’ষয়ে শ্বশুড়বাড়ির লোকেদের জানাতে দ্বিধাবোধ করে।

>>> যৌ’নজীবনের ক্ষেত্রেও নিজের পছন্দ-অ’পছন্দ, চাহিদা বা সমস্যার কথা অনেক মেয়েই বলে উঠতে পারেন না স’ঙ্গীর কাছে। সম্পর্ক দীর্ঘ দিনের হলে কিছু কিছু ক্ষেত্রে মেয়েরা নিজের চাহিদা খুলে বলতে পারলেও বেশির ভাগ নারী তা পেরে ওঠেন না।