free hit counter

ধূ’মপানের কারণে ‘হার্ট’ হয়ে যায় মোটা ও দুর্বল, বলছে গ’বেষণা

ধূমপান হৃদরোগ ও মৃ’ত্যু ঝুঁকি দ্বিগু’ণ বাড়ায়, এমনটিই জানাচ্ছে বিভিন্ন গবেষণা। করো’নারি হার্ট ডিজিজে (সিএইচডি) আ’ক্রা’ন্ত ৩০ শতাংশেরও বেশি রোগীর মৃ’ত্যুর কারণ সক্রিয় বা পরোক্ষ ধূমপান।

যদিও ধূমপান ও কার্ডিওভাসকুলার ইনজুরির মধ্যে সরাসরি যোগসূত্র তেমন টের পাওয়া যায় না। তবে ধূমপান দীর্ঘ সময়ের জন্য হৃদযন্ত্রের এন্ডোথেলিয়াল ফাংশনের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে।

মপান ও কার্ডিওভাসকুলার রোগের মধ্যে যোগসূত্রের উপর অতীতে অনেক গবেষণা আছে। তার মধ্যে বর্তমানে একটি নতুন গবেষণা যুক্ত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার গবেষকরা একটি নতুন সতর্কতা জারি করেছেন যে, ধূমপানের কারণে হার্ট বড় ও দুর্বল হয়ে যায়। স্টাডি কি বলে? গবেষণায় দেখা

গেছে, সক্রিয় ধূমপায়ীদের হার্টের স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটে। তবে ধূমপান আসক্তি ছেড়ে দিলে হার্টও ধীরে ধীর সুস্থ ’হতে শুরু করে। গবেষণার

লেখক, ডেনমা’র্কের কো’পেনহেগেনের হারলেভ ওজেন্টোফ্ট হাসপাতালের ডা. ইভা হোল্ট বলেছেন, ‘একজন ধূমপায়ীর হৃদপিণ্ডের বাম নিলয় র’ক্তের পরিমাণ কম ও সারা শরীরে র’ক্ত পাম্প করার শক্তি কম থাকে।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘ধূমপান ছেড়ে দিলে খুব শিগগিরই হার্টের কার্যকারিতা একটি নির্দিষ্ট ডিগ্রি পর্যন্ত পুনরু’দ্ধার হয়।’ ইএসসি কংগ্রে’স ২০২২ এ প্রদত্ত একটি প্রতিবেদনে হল্ট একই কথা উপস্থাপন করেছেন ।

নতুন প্রকাশিত গবেষণায় ধূমপান ছাড়ার প্রভাব, ধূমপান কার্ডিওভাসকুলার রোগ ছাড়া প্রা’প্তবয়স্কদের হৃদয়ের গঠনগত ও কার্যকরী পরিবর্তনের স’ঙ্গে যুক্ত কি না তা দেখা হয়েছে।

২০-৯৯ বছর বয়সী মোট ৩ হাজার ৮৭৪ জন সুস্থ প্রা’প্তবয়স্কদের গবেষণায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়। গড়ে অংশগ্রহণকারীদের বয়স ছিল ৫৬ বছর ও তাদের মধ্যে নারী ছিলেন ৪৩ শতাংশ।

সক্রিয় ধূমপায়ী যারা দীর্ঘদিন ধরে এই আসক্তি ধরে রেখেছেন পরীক্ষা করে দেখা যায়, তাদের হার্ট বড়, দুর্বল ও অন্যদের চেয়ে ভারী।

হল্ট বলেছেন, ‘আমর’া লক্ষ্য করেছি ধূমপানের কারণে বাম হার্টের চেম্বারের প্যাক এয়ার, গঠন ও কার্যকারিতার অবনতি ঘটে। সেটি আসলে হার্টের সবচেয়ে গু’রুত্বপূর্ণ চেম্বার।’

তিনি আরও বলেন, ‘যাদের প্যাক ইয়ার বেশি তাদের হার্ট কম র’ক্ত পাম্প করতে পারে।’ গবেষকরা আরও লক্ষ্য করেছেন, দীর্ঘমেয়াদী ধূমপায়ীদের হৃদয় বড়, ভারী ও দুর্বল হয়ে যায়।

যদি তারপরও ধূমপান ত্যাগ করা না হয় তাহলে হার্টের কার্যকারিতা ও র’ক্ত পাম্প করার ক্ষমতা কমে যায়। গবেষণায় আরও দেখা গেছে, ধূমপান র’ক্তসংবহনতন্ত্রে নেতিবাচক প্রভাব ছাড়াও হৃদপিণ্ডের ওপর সরাসরি নেতিবাচক প্রভাব ফেলে।

তবে ভালো খবর হলো, গবেষণায় বলা হয়েছে ধূমপান ছেড়ে দিলে হার্টের যাব’তীয় সমস্যা কমতে শুরু করে। আর ধূমপান ত্যাগ করা শুধু হৃদপিণ্ডের স্বাস্থ্যেরই উন্নতি ঘটায় না বরং দীর্ঘ সময়ের জন্য রোগমুক্ত জীবনও পেতে সাহায্য করে।