দুবাইতে যে অ,প’রা’ধের কারণে ৯ জনকে জে’ল এবং জ’রিমা’না করা হয়েছে

দুবাই পাবলিক প্রসিকিউশন আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এবং স্থানীয় ও ফেডারেল কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় মানি লন্ডারিং এবং সম্পর্কিত অ;পরা;ধে;র বি’রু’’দ্ধে ল’ড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। অর্থ পা;চা;র সং;ক্রা’ন্ত অ;পরা;ধ প্রতিরোধে আমিরাতের আ’দালত বিভিন্ন মা’মলায় বিভিন্ন সা;জা জারি করেছে।

সাজাগু’লির মধ্যে নয় মাস থেকে আট’ বছর পর্যন্ত সময়ের জন্য কা;রাদ;ণ্ড, মোট ৩০৬০০০ বা;জেয়া;’প্ত করা এবং ১৫ মিলিয়নেরও বেশি মূল্যের জ;রিমা;না অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

প্রথম মা’মলায়, ফৌজদারি আ’দালত একজন আসামীকে তার বিরু’দ্ধে আরোপিত অ’ভিযোগের জন্য তিন বছরের কারা’দ’ণ্ডের পাশাপাশি ১৫ মিলিয়ন দিরহা’ম জ;রিমা;না করা হয়েছে।

কাউন্সেলর ইসমাইল আলী মা’দানি, সিনিয়র অ্যাডভোকেট জেনারেল – পাবলিক ফান্ড প্রসিকিউশনের প্রধানের মতে, আসামী অর্থের সত্যতা স্থানান্তর, ব্যবহার এবং গো’পন করার অ;পরা;ধে ১৪,৭৬ মিলিওয়ন দিরহা’ম জরিমানা করা হয়েছে। বিবাদী একটি সেলস এক্সিকিউটিভ হিসাবে কাজ করত।

অন্য একটি মা;মলা;য়, ফৌজদারি আ’দালত চার আসামীকে তিন মাস থেকে তিন বছরের কা;রাদ;ণ্ড, দেশ থেকে নির্বাসন এবং ২১০০০০ দিরহা’ম সমপরিমাণ অর্থ প্রদানের শাস্তি দিয়েছে।

পঞ্চম বিবাদী একজন আইনের ব্যক্তিকে, ৩০০০০০ দিরহা’ম জ;রিমা;না করা হয়েছে। কাউন্সেলর ইসমাইল মা’দানি বলেছেন যে, আসামীরা এক বিদেশী মহিলার ২.৫ মিলিয়ন দিরহা’ম অ’পব্যবহার করেছে।

কাউন্সেলর ইসমাইল মা’দানি বলেছেন যে, কর্তৃপক্ষের সমন্বিত প্রচেষ্টা দ্রুত প্রমাণ সংগ্রহ করতে সহায়তা করেছে, যার ফলে ত’দন্তের দ্রুত এবং সঠিক সমা’প্তির পাশাপাশি আ’দালতের দ্বারা প্রতিরোধমূলক শা;স্তি প্রদান নিশ্চিত করতে কর্মকর্তাদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সক্ষম করেছে।

error: চুরি করা নিষেধ । 🤣