বাড়ির মধ্যে ঢুকে গেল চিতাবাঘ, আটকাতে গিয়েই হল বিপদ, মূহুর্তেই এলোপাতাড়ি হা’ম’লা করল, তুমুল ভাইরাল ভিডিও।

চিতাবাঘ প্রজাতির একটি অত্যন্ত দ্রুত এবং চালাক এবং হিং’স্র প্রাণী। চিতাবাঘ সাধারণত জ’ঙ্গলে থাকতে ভালোবাসি তবে জ’ঙ্গলে পাশাপাশি এলাকা আছে সেখানে ঘন ঘন জনবসতিপূর্ণ এলাকায় চিতাবাঘ মাঝে মাঝেই লুকিয়ে পড়ে।

এর ফলে বিপাকে পড়তে হয় তাদেরকে বিভিন্ন ধরনের বিপদে ফেলে দেয় এই ধরনের চিতাবাঘ গু’লো তারা হরহা’মেশাই যেকোনো সময়

যেকোনো মুহূর্তে ঘরে ঢুকে যায়। এবং ঘরে ঢুকে মানুষকে আ’ক্রমণ করে ফেলে এবং ঘরের গবাদিপশুকে আ’ক্রমণ করে খেয়ে ফেলি আর

কোন মানুষ তো বলাই বাহুল্য আ’ক্রমণ করে থাকে। তেমনি ভারতের বিভিন্ন সুন্দরবন এলাকা জুড়ে ব্যবহার চিতাবাঘের সমা’রোহ আরে চিতাবাঘ

হরহা’মেশাই করে এবং মানুষের উপর আ’ক্রমণ করে ফেলে। আজ আপনাদের এমন একটি ভিডিও সম্পর্কে বলবো যে ভিডিওতে দেখা যায় যে

চিতাবাঘ ঘরের ভেতর ঢুকে গেছি এবং এরপর তাদেরকে উ’দ্ধার করার জন্য তার কর্মীদের উপর হা’মলে পড়েছে। একের পর এক মানুষের ওপর

হা’মলা করছে এবং মানুষকে আ’হত করে ফেলেছে যেন এক কয়েক সেকেন্ডের একটি ঘূর্ণিঝড় বইয়ে গেল সে মানুষগু’লোর মধ্যে। ভিডিওতে

দেখা যায় যে একটি ঘরের চিতাবাঘ লুকিয়ে আছে এবং সেখানে থাকা মানুষজন খুব ভয় পাচ্ছে এর ফলে তাদের মধ্য থেকে একজন

উ’দ্ধারকর্মীদের কে দেয় যখন এসেছি তখন সৃষ্টি হয় আর এই হল থেকে অনেক মানুষ আ’হত হয়ে পড়ে। ঘরের সামনে জাল বিছিয়ে যখন

চিতাবাঘ থেকে ধরতে যায় সেই মৃ’ত ব্যক্তির উপর দিয়ে লাফিয়ে মানুষের হাতে এসে পড়ে এবং মানুষকে আ’ক্রমণ করতে শুরু করে। গ্রামের

ঘরে বাঘ চলে আসা এক ধরণের ঘটনাও সুন্দরবন এলাকা জুড়ে প্রায় সময় শোনা যায় কিন্তু এ ধরনের ঘটনা শহরাঞ্চলে বা অন্যান্য পৃথিবীর

মানুষের কাছে একটি বিরল ঘটনা কারণ চিতাবাঘ খুবই ভ’য়’ঙ্কর এবং হিং’স্র প্রাণী যারা পড়বে তারা নির্ঘা’ত মৃ’ত্যু হবে এটাই সত্য। কিন্তু এই বাঘ

যখন মানুষের মধ্যে এসে সবকিছু লন্ডভন্ড করে দেয় এবং মানুষের প্রাণ কে বিপন্ন করে তোলে তখন মানুষ প্রচন্ড ভয় পেয়ে যায়। আর এই

ভিডিওটি যখন নেট দুনিয়া ছেড়ে দেওয়া হয় তখন মানুষের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলে দেয়। কারণ এ ধরনের ভিডিও মানুষ দেখে ভয়ে

আতঙ্কিত আশ্চর্যজনক হয়ে পড়ে। কারণ এ ধরনের ঘটনার সাথে ঘটে তারাই শুধু বুঝতে পারে কোন ধরনের ঘটনা কতটুকু ভয়ংকর ’হতে

পারে কিন্তু নেট দুনিয়া ছেড়ে দেওয়ার মানুষ। যখন এ ধরনের ঘটনা দেখতে পায় এবং নিজের মধ্যে অনুভব করতে পারে। যে এটি আসলে খুবই ভ’য়’ঙ্কর তখনই এই ধরনের ভিডিও মানুষ কি সর্তকতা করানোর জন্য অথবা বিনোদন দেওয়ার জন্য হলেও সকলের মাঝে দ্রুত পরিমাণে

ভাইরাল হয়ে যায়। অন্যদিকে উ’দ্ধার কর্মীরা এ ধরনের বাঘের সন্ধান পেলে তাদেরকে উ’দ্ধার করার জন্য চলে আসে। এবং তাদের জীবন বিপজ্জনকভাবে রেখে তারা বাক্যে স্বীকার করে ফেলে এবং সেবাকে নিয়ে তারা তাদের কার্যালয়ে নিয়ে যায়। প্রাণী বিভাগ কার্যালয় নিয়ে যাওয়ার পর বাঘগু’লো যদি অসুস্থ হয়ে পড়ে তখন তাদেরকে সঠিক চিকিৎসা দেয়া হয় এবং সুস্থ করে তোলা হয়। প্রাণী বিভাগের সদস্যদের মতামত নিয়ে তারা ভাগ গু’লো কে পুনরায় জ’ঙ্গলে ছেড়ে দেয় এবং জেবা গু’লোকে তারা চিড়িয়াখানায় নিতে চায় তারা সেবাগু’লোতে চিড়িয়াখানায় নিয়ে মানুষকে আনন্দ দেওয়ার এবং বিনোদন দেওয়ার ব্যবস্থা করে দেয়। তবে চিতাবাঘ এত শান্ত প্রাণী নয় এরা খুব হিং’স্র মাংসাশী প্রাণীর তারা মানুষকে কোন প্রাণীকে পেলেই তারা মেরে ফেলে এবং তাদেরকে ভোগ করে থাকে।

error: চুরি করা নিষেধ । 🤣