হাতের আ’ঙুলের আকার বলে দেবে আপনার ব্যক্তিত্ব, মিলিয়ে নিন সকলেই

আপনি ঠিক কিরকম মানুষ, শান্ত না চঞ্চল তা আপনার আঙুলের আকার বলে দেবে। হাসছেন? বিশ্বা’স হচ্ছে না আমা’র কথা? তাহলে নিজের আঙুলের সেপ দেখে নিজেই মিলিয়ে নিন যে সত্যি না মিথ্যা!

উপরে তিন রকমের আকারের ছবি দেওয়া আছে। এই তিনটির মধ্যে কোনটি আপনার আঙুলের আকারের সাথে মিলছে তা আগে দেখু’ন।

পুরো একই রকম না মিলে যদি কাছাকাছিও মেলে তাহলেও হবে।\ ১,২,৩ এর মধ্যে যেটা আপনার আঙুলের সেপ তা মিলিয়ে আপনি নিজেই জেনে নিতে পারবেন আপনি ঠিক কিরকমের মানুষ।

১ নম্বর আ’’ঙ্গু’’লের আকৃতি তুলনামূলকভাবে সোজা আপনি আপনার অনুভূ’তিগু’’লি লুকিয়ে রাখেন এবং বাইরে নিজের আবেগ দেখানো পছন্দ করেন না।

তবে আপনি ভেতর থেকে খুবই আবেগপ্রবণ। আপনি সর্বদা শান্ত ও সংযত থাকার চেষ্টা করেন সবার সামনে। নিজেকে স্বাধীন এবং শক্তিশালী হিসাবে দেখাতে পছন্দ করেন।

আপনি মিথ্যা এবং প্রতারণা অ’পছন্দ করেন, সত্য এবং ন্যায্যতা আপনার পছন্দের। আপনি হাসতে পছন্দ করেন, এমনকি মজার কিছু না হলেও আপনার মুখে হাসি সবসময় থাকে। নিজের বিশ্বা’সের প্রতি আপনি অহংকারী যা কোন ভুল নয়।

অন্যকে সাহায্য করতে আপনি ভালবাসেন। আপনি খুবই ভালো মনের মানুষ। তবে প্রথম আলাপে আপনি দূরত্ব বজায় রাখেন অন্য ব্যাক্তির সাথে।
কিন্তু একবার আপনি কাউকে জেনে গেলে তার সাথে মন খোলা থাকেন সব সময়।২ নম্বর আ’’ঙ্গু’’লের আকৃতি সোজা নয় হালকা ব্যাকা নতুন মানুষজনের সাথে আলাপের জন্য উৎসাহী থাকেন। কিন্তু আলাপের সময় এত চুপ থাকেন যে আলাপ আর এগোতে পারে না।যেকোনো কাজের প্রতি আপনি খুবই মনযোগী।

কোন কাজ একবার শুরু করলে তা শেষ না হওয়া পর্যন্ত আপনি থেমে থাকেন না। আপনি অল্পতে কষ্ট পান। কিন্তু কাউকে বুঝতে দেন না। বড় আঘা’ত পেলেও আপনি ভান করেন যে সব ঠিক আছে কিছু হয়নি।

৩ নম্বর আ’’ঙ্গু’’লের আকৃতি অনেকটা ঢেউ খেলানো ধরণের যেকোনো ধরণের চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করেন, কিন্তু কম্ফরট জোনের বাইরে হলে আপনি পিছিয়ে যান তা থেকে। মানুষের মতামতের প্রতি আপনি শ্র’’দ্ধাশীল। কারোর ভাবনাকে আপনি ছোট করেন না। তা আপনার মতের সাথে না মিললেও।

সোজা কথা সোজা ভাবে বলতে পছন্দ করেন। ছল চাতুরী বা মিথ্যা পছন্দ করেন না। আপনি জানেন যে আপনি কী পছন্দ করেন এবং পছন্দ করেন না,
মাঝে মাঝে সহনশীলতার জন্য অনেক অ’পছন্দের জিনিস মেনে নেন। তাই মনে মনে দুঃখ পান।নিজের অনুভূ’তি এবং

আবেগকে নিজের কাছে রাখতে পছন্দ করেন, শেয়ার করতে ভালবাসেন না। কারোর সাথে ঝগড়া হলে বা কেউ অন্যায় করলে, সে যদি ক্ষ’মা চায় আপনি মাফ করে দেন। এই বি’ষয়ে একটু ভাববেন। কারণ আপনার ভালো মানুষীর ফায়দা অনেকেই নিয়ে নেয়। যা আপনি বুঝতেও পারেন না