হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তায় বড় ধরনের হুমকি ৫টি ভবন।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তায় বড় ধরনের হু’মকি ৫টি ভবন। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তায় বড় ধরনের

হু’মকি হয়ে দেখা দিয়েছে বিমানবন্দরসংল’গ্ন ২টি বেসরকারি তারকা হোটেল ও ১টি শপিং কমপ্লেক্সসহ ৫টি বহুতল ভবন। ভবনগু’লো থেকে বিমানবন্দরের

প্রতিটি স্পর্শকাতর স্থান দেখা যায়। বহুতল ৫টি ভবনের ছাদ বা যেকোন এপার্টমেন্ট ব্যবহার করে যে কোনো ধরনের নাশকতা ’হতে পারে।

তবে খোদ বেসামর’িক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) কোনো ধরনের নিয়মনীতি অনুসরণ না করেই এ রকম একটি স্পর্শকাতর এলাকায় বেসরকারি

মালিকানার ৫টি বহুতল ভবন করার অনুমতি দিয়েছে।সি’দ্ধান্তটি বেবিচকের চরম অদূরদর্শী ছিল। ভবনগু’লো চালু হলেই আন্তর্জাতিক এই বিমানবন্দরটি বড়

ধরনের নিরাপত্তাঝুঁকির মধ্যে পড়বে। এ অবস্থায় KPI (কি পয়েন্ট ইনস্টলেশন) কর্তৃপক্ষ, NSI ও পু’লিশের ট্রাফিক বিভাগসহ অন্যান্য কর্তৃপক্ষের ছাড়পত্র

ছাড়া বিমানবন্দরের প্রবেশমুখের ১টি ১২ তলা ৫ তারকা হোটেল, ১টি ১৩ তলা ৩ তারকা হোটেল ও ১টি ৬ তলা শপিং কমপ্লেক্স,

১টি ১২ তলা কার পার্কিং ও অফিস কমপ্লেক্স এবং ১টি ৩ তলা ব্যাংকুয়েট হল যাতে কোনোভাবে চালু করতে না পারে সেজন্য জরুরি পদ’ক্ষেপ নেওয়ার সি’দ্ধান্ত হয়েছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত কেপিআইডিসির সভায় এ ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা হয়।এ ভবনগু’লোর মালিক দেশের দুটি শীর্ষ বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সামিট ও ইউনাইটেড গ্রুপ।