ফের হাজরে আসওয়াদে চুমু খেতে পারছেন হাজিরা

ইসলামের পবিত্রতম নিদর্শন হাজরে আসওয়াদে আবারও স্পর্শ ও চুমু খেতে পারছেন হাজিরা। সৌদি আরবের মক্কা নগরীর কাবা শরিফের দেয়ালে অবস্থিত এই নিদর্শন।

করো’নাভাইরাসের মহা’মা’রি শুরুর পর কাবার চারদিকে বেড়া স্থাপন করে সৌদি কর্তৃপক্ষ। অবশেষে তা তুলে নেওয়ায় এখন থেকে হাজিরা কালো পাথর হাজরে আসওয়াদের কাছে যেতে পারবেন হাজিরা।

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা নিশ্চিত করতে ওই বেড়া স্থাপন করা হয়। এবার ওমর’াহ মৌসুম শুরুর আগে তা সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। সামর’্থ্যবান প্রত্যেক মুসলিমের জীবনে একবার হজ পালন করা অবশ্য কর্তব্য।

এই বছরের হজ অনুষ্ঠিত হয় গত ৭ থেকে ১২ জুলাই। আর ওমর’াহ বছরের যেকোনও সময়ে পালন করতে পারেন মুসলিমর’া। সারা বিশ্ব থেকে লাখ লাখ মুসলিম প্রতিবছর এই প্রার্থনায় অংশ নিতে প্রতিবছর সৌদি আরব সফর করে থাকেন।

সৌদি আরব এই বছরের শুরুতে বেশিরভাগ করো’না বিধিনিষে’ধ প্রত্যাহার করে নেয়। সেকারণে গত মাসে অনুষ্ঠিত হজে প্রায় স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসে।

২০২০ সালে মাত্র এক হাজার মুসলিম হজে অংশ নেওয়ার সুযোগ পায়। কেবল সৌদি আরবে অবস্থানরতরা সেবছর এই সুযোগ পায়। ২০২১ সালে হজে অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা বাড়িয়ে ৬০ হাজার করা হয়।

আর এই বছর প্রায় দশ লাখের বেশি মুসলিম হজ পালনে মক্কায় সমবেত হয়। ইসলামের রীতি অনুযায়ী কাবা শরিফের পূর্বদিকের দেয়ালে অবস্থিত কালো পাথর হাজরে আসওয়াদ।

মুসলিম’দের বিশ্বা’স এই পাথর প্রথম মানব আদম ও হাওয়ার সময়ের। ইসলাম আবির্ভাবের আগে থেকেই পাথরটি পবিত্র বলে মনে করা ’হতো। বলা হয়ে থাকে পাথরটি আসলে সাদা, কিন্তু এটি স্পর্শ করা মানুষের পাপ শোষণ করতে করদে এটি কালো হয়ে গেছে। সূত্র: বিবিসি