প্রেমের টানে সিঙ্গাপুর থেকে বাংলাদেশে এসে বিয়ে, ২৬ দিনেই বিচ্ছেদ

বছর আট’েক আগে কাজের জন্য সি’ঙ্গাপুরে গিয়েছিলেন পাভেল (২৭)। সেখানে গিয়ে ফাতেমা নামে সি’ঙ্গাপুরের এক তরুণীর স’ঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এক সময় পাভেল দেশে ফেরেন। তার প্রতি ভালোবাসা থেকে ফাতেমাও বাংলাদেশে চলে আসেন। পরবর্তীতে তাদের বিয়েও হয়। কিন্তু সেই বিয়ে টেকেনি এক মাসও।

পাভেলের বাড়ি কুষ্টিয়ার কুমা’রখালী উপজে’লার চাঁদপুর ইউনিয়নের জু’ঙ্গলী গ্রামে। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ২০১৪ সালে কাজের জন্য সি’ঙ্গাপুরে যান তিনি। ২০১৬ সালে সেখানের আল জুনায়েদ শহরে কর্মসূত্রে ফাতেমা’র স’ঙ্গে তার পরিচয় হয়।

পরিচয়ের তিন বছর পর এক পর্যায়ে তারা প্রেমের সম্পর্কে জড়ান। তিনি বলেন, ২০১৯ সালে পাভেল দেশে ফিরে আসেন। ফাতেমাও পাভেলের সন্ধানে বাংলাদেশে ছুটে চলে আসেন।

২০২০ সালের ২০ জানুয়ারি পাভেল ও ফাতেমা বিবাহবন্ধনে আব’দ্ধ হন। তখন বিদেশি বধূকে দেখতে এলাকার অনেকেই পাভেলের বাড়িতে ভিড় জমান।

পরের গল্পটা আর সুখকর না। বিয়ের ২৬ দিন পর ফাতেমা সি’ঙ্গাপুরে ফিরে যান। এরপর করো’নাভাইরাস মহা’মা’রির কারণে দেশটিতে লকডাউন শুরু হলে ফতেমা আর বাংলাদেশে আসতে পারেনি।

এর কিছুদিন পরেই ফাতেমা পাভেলকে জানান, তার অন্যত্র বিয়ে হয়ে গেছে। তিনিও যেন নতুন করে সংসার শুরু করেন। এরপর বছরখানেকের মাথায় পাভেলও দ্বিতীয় বিয়ে করেন। বর্তমানে পাভেলের ঘরে একটি কন্যাসন্তান রয়েছে।

ফাতেমা’র বি’ষয়ে কোনো অ’ভিযোগ আছে নাকি জানতে চাইলে পাভেলের বাবা লিয়াকত আলী বলেন, ফাতেমা অনেক ভালো মেয়ে। তার বিরু’দ্ধে আমা’দের কোনো অ’ভিযোগ নেই।

এ বি’ষয়ে পাভেলের স’ঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তার কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। স্থানীয় চাঁদপুর ইউনিয়নের জু’ঙ্গলী গ্রামের ৪ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য লিটন উদ্দিন বলেন, যতদূর জানি বিয়ের পর ওই তরুণী সি’ঙ্গাপুর ফিরে গেছেন। তাদের বি’ষয়ে বিস্তারিত কিছু জানা নেই। সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন