তেঁতুল দিয়ে ত্বকের লা’বণ্য ফেরাবেন যেভাবে

ত্বকের লাবণ্য ধরে রাখতে কে না চায়। তবে বায়ুদূষণের প্রভাব, সূর্যের কড়া রোদের প্রভাবসহ নানা কারণে অনেকেই ত্বকের লাবণ্য হারিয়ে অস্বস্তিতে পড়েন। দামি দামি প্রসাধনী সামগ্রীর পেছনে

টাকা ব্যয় করতে শুরু করেন। তবে প্রাকৃতিক উপায়েও ত্বকের লাবণ্য ফেরানো সম্ভব। এমন একটি ঘরোয়া উপাদান হলো তেঁতুল। টক জাতীয়

এই ফলে রয়েছে নানা পুষ্টিকর উপাদান, যা ত্বকের জন্য ভালো। তেঁতুলে রয়েছে আলফা হাইড্রক্সি অ্যাসিড, যা এর এক্সফোলিয়েট গু’ণের জন্য় বিখ্যাত। ত্বকের ময়লা দূর করা যায় তেঁতুল দিয়ে,

এটি ত্বক পরিষ্কার রাখে এবং বয়সের ছাপও পড়তে দেয় না ত্বকে। এ ছাড়াও তেতুঁলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি ও অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট। যা ত্বকের দাগছোপ মলিন করতে সাহায্য করে। ত্বককে ভালো রাখে।

ত্বকের লাবণ্য ফিরে পেতে তেতুঁলের ব্যবহার-একটি বাটিতে পরিমাণ মতো কুসুম গরম পানি নিন। এতে অন্তত ২ ঘণ্টা তেঁতুল ভিজিয়ে রাখু’ন।

সারারাত তেঁতুল ভিজিয়ে রাখতে পারলে আরো বেশি ভালো। এরপর ভিজানো তেঁতুল থেকে বীজ আলাদা করে নিন। এর স’ঙ্গে হলুদগু’ঁড়ো

মেশান। এই প্যাকটিই মুখে, ঘাড়ে ও অন্যান্য স্থানে লাগিয়ে ১০ মিনিট রেখে দিন। প্রাকৃতিক লাবণ্য ফিরে পেতে স’প্তাহে অন্তত ১ বার

ফেসপ্যাকটি ব্যবহার করতে পারেন। তবে প্যাচ টেস্ট করতে ভুলবেন না। সংবেদনশীল ত্বক হলে মুখে প্রথমেই ব্যবহার করবেন না। চিকিৎসকের পরামর’্শও নিতে পারেন।

কনুই ও ঘাড়ের কালো দাগ দূরতে করতে তেতুঁলের ব্যবহার-কনুই, ঘাড়ে ও গলায় কালো ছোপ তৈরি হলে তা দেখতে খারাপ দেখায়। এই সমস্যা থেকে দ্রুত ও সহজ উপায়ে প্রতিকার পেতে একটি পাত্রের মধ্যে তেঁতুলের পাল্প, স’ঙ্গে গো’লাপ জলের কয়েক ফোঁটা ও মধু মিশিয়ে একটি পেস্ট বানিয়ে নিন। এবার এই মিশ্রণটি ঘাড়ে, গলায় লাগিয়ে নিয়ে ১৫ মিনিটের জন্য অ’পেক্ষা করুন। তারপর ধুয়ে ফেলুন। স’প্তাহে অন্তত ৩ বার এই প্যাকটি ব্যবহার করতে পারেন। ১৫ দিনের মধ্যেই পার্থক্য আপনার চোখে পড়বে।

স্ক্রা’ব হিসেবে তেতুঁলের ব্যবহার-এক্সফোলিয়েটিং উপাদানে ভরপুর তেঁতুল। ত্বকের মৃ’ত কোষ দূর করতে প্রাকৃতিক ক্লিনজার হিসেবে তেতুঁল ব্যবহার করতে পারেন। দিনের পর দিন আমা’দের ত্বকের উপরের স্তরে মৃ’ত কোষ জমা হয়। যা ত্বকের প্রাকৃতিক লাবণ্য কমিয়ে দেয়। গভীর ক্লিনজিং করার জন্য তেঁতুল সহায়ক। একটি বাটির মধ্যে এক টেবিল চামচ দই ও পরিমাণ মতো রক সল্ট নিন। আপনার প্রয়োজন মতো বীজ ছাড়ানো তেঁতুল মিশিয়ে নিন। এই তিন উপকরণ মিলিয়ে একটি মিশ্রণ ভালো করে বানিয়ে নিন। ত্বকের উপর এই মিশ্রণ ভালো করে ম্যাসাজ করে নিন। তবে জোরে ঘষবেন না। ২-৩ মিনিট ম্যাসাজ করুন। পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ত্বকে পরিবর্তন টের পাবেন।

ক্লিনজার হিসেবে তেতুঁলের ব্যবহার-এক টেবিল চামচ তেঁতুলের পাল্প পানিতে ভিজিয়ে রাখু’ন। এরপর সেটি থেকে বীজ বের করে নিন। ভালো করে চটকে নিন তেঁতুল। এর মধ্যে এক চা-চামচ টক দই ও এক চা-চামচ গো’লাপ জল মিশিয়ে নিন। একটি বাটিতে প্রত্যেকটি উপকরণ ভালো করে মেশান। এই মাস্কটি আপনার মুখে অন্তত ১৫-২০ মিনিট রাখু’ন। তারপর ধুয়ে ফেলুন। ত্বক পরিষ্কার থাকবে। আপনার ত্বক সংবেদনশীল হয়ে থাকলে তেতুঁল ব্যবহারের আগে চিকিৎসকের পরামর’্শ দিন।