৭ কারণে হতে পারে পা’কস্থলীতে ক্যা’ন্সার

আমা’দের জন্য শরীরের সব অ’ঙ্গই অনেক গু’রুত্বপূর্ণ। কিন্তু তার মধ্যে অন্যতম একটি হচ্ছে পাকস্থলী। আর এতে হওয়া বিভিন্ন সংক্রমণের মধ্যে একটি হচ্ছে পাকস্থলীতে ক্যান্সার।

মূলত পেটের টিস্যু তৈরি করে এমন কোষের ডিএনএতে পরিবর্তন হলে পাকস্থলীর ক্যান্সারের সূচনা ঘটে। মিউটেশনের কারণে ডিএনএ কোষকে দ্রুত বৃ’দ্ধি পেতে বলা শুরু করে এবং দ্রুত

প্রতিলিপি ঘটে। ফলে এই কোষগু’লো একত্রিত হয় এবং টিউমা’র গঠন করে। আর এ পরিস্থিতিতে সব সুস্থ কোষকে মেরে ফেলে। এ ছাড়া এই বৃ’দ্ধি অন্যান্য অ’ঙ্গেও ছড়িয়ে পড়তে পারে।

এখন পর্যন্ত পাকস্থলীতে ক্যান্সার কেন হয় তার নির্দিষ্ট কারণ জানা না গেলেও কী কী কারণে এটির বিকাশ ’হতে পারে তার ধারণা দিয়েছে গবেষণা। আসুন জেনে নিই তেমনই সাত কারণ—

১. গ্যাস্ট্রোইসোফেজিয়াল রিফ্লাক্স ডিজিজ-গ্যাস্ট্রোইসোফেজিয়াল রিফ্লাক্স ডিজিজ হলো একটি অবস্থা, যেখানে খাদ্যনালীর (ইসোফেগাস) শেষে অবস্থিত বৃত্তাকার পেশি ঠিক করে বন্ধ হয় না, আর পাকস্থলীতে থাকা যাব’তীয় জিনিস খাদ্যনালীতে উঠে আসে ও জ্বা’লা সৃষ্টি করে। এটি অনেকটা বুকজ্বা’লা করার মতো। এটি থেকেও পাকস্থলীতে ক্যান্সার ’হতে পারে।

২. স্থূলতা-স্থূলতার কারণে অনেক সময় পাকস্থলীতে ক্যান্সার ’হতে পারে। আপনার অতিরিক্ত স্থূলতা থাকলে তা কমানোর চেষ্টা করা উচিত।৩. বেশি নোনতা ও ধোয়াযুক্ত খাবার-বেশি পরিমাণে নোনতা ও ধোয়াযুক্ত খাবার খাওয়ার কারণে অনেক সময় পাকস্থলীতে ক্যান্সার ’হতে পারে।

৪. ফল ও সবজি কম খেলে-ফল ও সবজি শরীরের জন্য অনেক গু’রুত্বপূর্ণ। এমনকি এ ধরনের খাবার অতিরিক্ত কম খাওয়ার ফলে পাকস্থলীতে ক্যান্সার পর্যন্ত ’হতে পারে। ৫. পারিবারিক ইতিহাস থাকলে-পারিবারিক উতিহাস সূত্রেও অনেকের পাকস্থলীতে ক্যান্সার ’হতে পারে।

৬. দীর্ঘমেয়াদি পেটের প্রদাহ বা গ্যাস্ট্রিক-দীর্ঘমেয়াদি পেটে প্রদাহ থাকলে বা অতিরিক্ত পরিমাণে গ্যাস্ট্রিকের কারণে তা একসময়ে গিয়ে পাকস্থলীতে ক্যান্সার সৃষ্টি করতে পারে। ৭. ধূমপান-অতিরিক্ত মাত্রায় এবং দীর্ঘ সময় ধরে ধূমপান করার কারণে তা পেটের পাকস্থলীতে ক্যান্সার সৃষ্টি করতে পারে।